Agaminews
Agaminews Banner

শেবাচিমে বার্ন ইউনিট চালুর দাবিতে বরিশালে গণ অধিকার পরিষদের মানববন্ধন


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৬, ২০২১ ১:১৫ অপরাহ্ণ শেবাচিমে বার্ন ইউনিট চালুর দাবিতে বরিশালে গণ অধিকার পরিষদের মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার:

লঞ্চ দুর্ঘটনায় নিহত পরিবারকে পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ, আহতদের সুচিকিৎসা; সকল গণপরিবহনে পর্যাপ্ত অগ্নিনির্বাপক ও সুরক্ষা ব্যবস্থা বাধ্যতামূলকভাবে নিশ্চিত করা এবং শেবাচিমে অবিলম্বে বার্ন ইউনিট চালুর দাবিতে ছাত্র-যুব অধিকার পরিষদের আয়োজনে বরিশালে মানববন্ধন করে গণ অধিকার পরিষদ ।

গতকাল রবিবার সকাল ১১টায় সদর রোড,অশ্বিনী কুমার টাউন হলের সামনে এই মানববন্ধন করে গণ অধিকার পরিষদ।

গণ অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ, বরিশাল মহানগর আহবায়ক জনাব রফিকুল ইসলাম রাসেলের সভাপতিত্বে ও ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি মেহেদী হাসানের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন যুব অধিকার পরিষদ,বরিশাল মহানগর সদস্য সচিব জনাব শফিকুল ইসলাম সাগর, ছাত্র অধিকার পরিষদের মনিরুজ্জামান মুন্না, যুবর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ওহিদুজ্জামান, মহানগর ছাত্র অধিকার পরিষদের নেত্রী মাহফুজ নুসরাত এবং অন্যান্য ইউনিটের নেতাকর্মীবৃন্দ।

আলোচনায় বক্তারা বলেন, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান সেখানে অব্যবস্থাপনার জন্যই বিগত প্রায় দুই বছর ধরে বার্ণ ইউনিট বন্ধ রয়েছে, আমরা দ্রুত এর সমাধান চাই এবং বিশেষজ্ঞ ডাক্তার নিয়োগের মাধ্যমে বার্ন ইউনিট পুনরায় চালুর জোর দাবি জানাচ্ছি।

আরও বলেন, এইসব গণপরিবহনে পর্যাপ্ত অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ও পর্যাপ্ত সুরক্ষা সামগ্রী এবং কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ থাকলে এই দুর্ঘটনার ক্ষয়ক্ষতি অনেকাংশে কমানো যেত, তাই এ বিষয়ে সরকারের যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য দাবি রইলো।

অনেকে বলেন, আহতদের বেশির ভাগকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও একটি বিভাগীয় মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বার্ন ইউনিট ও বিশেষজ্ঞ ডাক্তার না থাকায় পর্যাপ্ত চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দগ্ধ রোগীরা।

নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে সকল নিহত পরিবারকে ক্ষতিপূরণ, আহতদের সকল ঔষুধের ব্যবস্থা সরকারিভাবে করে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবি জানান।

গত বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে ঢাকা থেকে বরগুনাগামী যাত্রীবাহী অভিযান-১০ লঞ্চে অগ্নিকান্ড ঘটে। ঝালকাঠি সদর উপজেলার গাবখান ধানসিঁড়ি ইউনিয়ন সংলগ্ন সুগন্ধা নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এতে এখন পর্যন্ত প্রায় অর্ধশতাধিক মৃত্যু এবং শতাধিক আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।