Agaminews
Agaminews Banner

চরফ্যাশনে বিষপানে কিশোরীর আত্মহত্যা


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১০, ২০২১ ৪:১১ অপরাহ্ণ চরফ্যাশনে বিষপানে কিশোরীর আত্মহত্যা

চরফ্যাশন প্রতিনিধি ॥

ভোলার চরফ্যাশনের দক্ষিণ আইচা থানার দক্ষিণ চর মানিকা গ্রামে প্রেমে প্রতারিত হয়ে বিচারহীনতায় আকলিমা (১৪) নামের এক কিশোরীর বিষপানে আত্মহত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে স্বজনরা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে চরফ্যাশন হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসাধীনবস্থায় সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত কিশোরী ওই গ্রামের আলাউদ্দিনের মেয়ে। এঘটনায় ভিক্টিম পরিবার শুক্রবার বিকালে দক্ষিণ আইচা থানায় আত্মহত্যার প্ররোচনায় অভিযোগে মামলা করতে গেলে মামলা নেয়নি পুলিশ।

কিশোরীর মামা আমির হোসেন হাওলাদার অভিযোগ করেন,একই গ্রামের প্রতিবেশী আনসার আলীর সাথে কিশোরী আকলিমার প্রেম প্রণয় গড়ে উঠে। তিন মাস আগে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে প্রেমিক আনসার আলী ও তার বন্ধু হাসান ফুসলিয়ে কিশোরীকে রাতের আধাঁরে বাড়ি থেকে পালিয়ে নিয়ে যায়। রাতভর কিশোরীকে তাদের হেফাজতে রেখে জোরপূর্বক তার সাথে শারিরিক সম্পর্ক করেন। ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে পরের দিন স্থানীয় মাতাব্বর সালাম খলিফা ও জিয়া আখনের মধ্যস্থাতায় আনসার আলীর সাথে আকলিমার বিয়ে হবে এমন আস্বাসে আনসার আলীর মাধ্যমে কিশোরীকে বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। একদিন পর ওই ঘটনায় শালিশে বসেন স্থানীয় দুই মাতাব্বর। মাতাব্বরদের সিন্ধান্তে ওই কিশোরীর সাথে প্রেমিক আনসারের সাথে বিয়ে হওয়ার দিন ধার্য্য করা হয়। কিন্তু প্রেমিক আনসার বিবাহিত হওয়ায় তিনি এবং তার পরিবার বিয়ের নামে তালবাহানা শুরু করে সময় ক্ষেপন করতে থাকেন। বৃহস্পতিবার কিশোরী আকলিমা প্রেমিক আনসারকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে আনসার তাকে বিয়ে করতে পারবেনা বলে সাফ জানিয়ে দেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে মোবাইল ফোনে তর্কবিতর্ক হয়। তর্কের জের ধরে প্রেমিক আনসারের প্রতারনার শিকার অভিমানী কিশোরী আকলিমা গত বৃহস্পতিবার বিকালে তার চর মানিকা গ্রামের নিজ বাড়িতে প্রেমিকার প্রতারনা শিকার হয়ে বিষপান করেন।

স্বজনরা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে চরফ্যাশন হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসাধীনবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত আকলিমার চাচা মোসলেম জানান, আকলিমার সাথে প্রেমের প্রতারনা করে পালিয়ে নিয়ে যায় ওই যুবক আনসার আলী। পরে বিয়ের আস্বাস দিয়ে সটকে পরয় তার ভাতিজি আকলিমা আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন। এঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবার থানায় মামলা করতে গেলে মামলা নেয়নি পুলিশ। ঘটনার পরপরই প্রেমিক নয়ন ও তার পরিবারের সদস্যরা আতœগোপনে থাকায় তাদের বক্তব্য জানাযায়নি।

মাতাব্বর জিয়া আখন তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এসব বিষয়ে তার কিছুই জানা নাই।

দক্ষিণ থানার ওসি মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, প্রতিবেশী যুবকের সাথে প্রেম প্রনয়ের জেরে কিশোরী বিষপান করেছে বলে জানাগেছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ভোলা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তবে ময়না তদন্তের রির্পোট পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।