Agaminews
Agaminews Banner

হাসপাতালে ঔষুধ থাকলেও রোগীদের বাহির থেকে কিনতে হচ্ছে 


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: এপ্রিল ১৯, ২০২১ ৫:০৩ অপরাহ্ণ হাসপাতালে ঔষুধ থাকলেও রোগীদের বাহির থেকে কিনতে হচ্ছে 
ভান্ডারিয়া  প্রতিনিধি ॥
করোনার তা-বের সাথে তাল মিলিয়ে এবার ভা-ারিয়া ১০০ সয্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পানি বাহিত রোগ ডায়েরিয়ার প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এ প্রাদুর্ভাবে হাসপাতালে গতকাল সোমবার ৩০ জন ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে এবং প্রতিদিন গড়ে ২৫-৩৫ জন ডায়ারিয়ায় আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। বেশীর ভাগ শিশু এবং বৃদ্ধ আক্রান্ত হচ্ছে। হাসপাতালে সিট না থাকায় বারান্দায়ও রোগিদের চিকিৎসা সেবা নিতে দেখা গেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,গত এক সপ্তাহে উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে প্রায় দুই শতাধিক রোগী। ডারিয়ার রোগী রাখার জন্য উপজেলা হাসপাতাল ও ক্লিনিকে তিল ধরণের ঠাই নেই । হাসপাতালের মেঝে, বারান্দাসহ যে যেখানে যেভাবে পারছেন ডায়েরিয়া রোগের চিকিৎসা নিচ্ছেন যার কারনে রোগীসহ রোগীর আত্মীয় স্বজনরা দিশেহারা হয়ে পড়ছে। স্থানীয় সুত্র জানায় ও রোগিদের অভিযোগ, হাসপাতালে আইভি স্যালাইন সহ কোন ঔষুধের সংকট নেই। যেখানে একটি রোগীর ৫ থেকে ৭টি আইভি স্যালাইন প্রয়োজন সেখানে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মাত্র নামমাত্র ১/২টি স্যালাইন দিয়ে বাকী স্যালাইন সহ সকল ঔষুধ বাহির থেকে ক্রয় করে নিতে বলেন। হাসপাতালের বারান্দায় চিকিৎসা নেয়া দরিদ্র শিশু (জমজ) তৈয়বা ও সারামনীর (৭মাস) মা বলেন, হাসপাতাল থেকে তারা দুটি স্যালাইন পেয়েছেন । তবে বমি সহ অন্যন্য ঔষুধ ক্রয় করতে হয়েছে। তাদের সাথে এ প্রতিবেদক বিকালে আলাপকালে নার্সের কাছে খাবার স্যালাইন চেয়েও শিশু দুটির মা পাইনি। নার্স বলে নেই। হাসপাতালের বারান্দার অপর প্রান্তে চিকিৎসা নেয়া দিনমজুর ইদ্রিস ফরাজী (৫০) ও রশনারা বেগম (৫৫) এর একই অভিযোগ, নাম মাত্র দুই একটি স্যালাইন দিয়েছে হাসপাতাল থেকে বাকী সকল ঔষুধ কিনতে হয়েছে। আমরা অসহায় গরীব মানুষ, এতো ওষুধ কিনতে আর পারছি না।  ডায়েরিয়ার প্রকোপ বৃদ্ধি বিষয়ে  জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য প.প.কর্মকর্তা (টি.এইচ.এ) ডাঃ ননী গোপাল রায় জানান, প্রতি বছরই  এই সিজনে এ রোগের বৃদ্ধি পায় । এ হাসপাতালে  গত সাত দিনে গড়ে ৩০ জন করে রোগি ভর্তি হচ্ছে । তবে, প্রযাপ্ত ঔষুধ সর্বারহ থাকার পরও রোগীদের কেন বাহীর থেকে ঔষুধ কিনতে চানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি দেখবেন বলে জানান ।