Agaminews
Agaminews Banner

উজিরপুরে মুদিব্যবসায়ী কর্তৃক বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্বামী পরিত্যক্তা নারীর ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: এপ্রিল ২২, ২০২১ ৫:৪৬ অপরাহ্ণ উজিরপুরে মুদিব্যবসায়ী কর্তৃক বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্বামী পরিত্যক্তা নারীর ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ
উজিরপুর প্রতিনিধি ॥
বরিশালের উজিরপুরে মুদি ব্যবসায়ী কর্তৃক স্বামী পরিত্যক্তা নারীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৫ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপার সৃষ্টি হয়েছে। ভুক্তভোগী নারী ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায় উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের হস্তিশুন্ড গ্রামের ঈদগাহ মার্কেটে মুদিমনোহারী ব্যবসায়ী মোঃ জাকির হোসেন মুন্সি(৫০) একই গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা এক নারী(৪৫)কে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পরকিয়া প্রেমে বাধ্য করে। এমনকী ২ মাস পূর্বে জাকির মুন্সি ওই নারীকে গভীর রাতে ধর্ষন করতে গিয়ে জনতার রোষানলে পরে এবং কতিপয় চাঁদাবাজরা জাকির হোসেনকে হাতেনাতে ধরে পুলিশের কাছে সোপর্দ না করে মোটা অংকের টাকা উৎকোচ নিয়ে ঘটনাটি ধামাচাঁপা দেয়। অসহায় নারী জানান তাকে বিয়ের কথা বলে প্রতারনা করে ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছে। কিছুদিন পূর্বে ঈদগাহ মার্কেটে জাকির হোসেনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ওই নারী তার পাওণাকৃত ৫ লক্ষ টাকা ফেরৎ চাইতে গেলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকী দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। গোলজোগ শুনে লোকজন জরো হলে বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পরে। অভিযুক্ত জাকির হোসেন পালিয়ে থাকায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে তার স্ত্রী সন্তানরা বিষয়টি এড়িয়ে যায়। জাকিরের স্ত্রী ও তার ছেলে মিলে ওই নারীর বাবার বাড়ীতে গিয়ে প্রকাশ্যে হুমকী দিয়ে বলে বিষয়টি নিয়ে বেশী বারাবারি করলে পরবর্তীতে ফল ভাল হবেনা। হুমকীর মুখে আতঙ্কে অসহায় নারীর পরিবার। ভুক্তভোগী নারী সাংবাদিকদের কান্নার কন্ঠে আরো বলেন তার সারা জীবনের সঞ্চয় ৫ লক্ষ টাকা প্রতারনা করে আত্মসাৎ করেছে জাকির মুন্সি। তিনি চট্রগ্রামে বোনের বাসায় বেড়াতে গিয়ে লকডাউনে আটকে গেছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এলে গ্রামে ফিরে এসে জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করবেন। এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছে জাকির মুন্সি মুলত এলাকার কতিপয় প্রভাবশালীর ছত্রছায়ায় বিভিন্ন অপকর্ম করে পার পেয়ে যায়। অপরদিকে খোটবাজদের হয় সুবিধা। জাকির হোসেন ওই নারীকে ধর্ষন করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা খেয়ে মোটা অংকের টাকা খোটবাঁজদের উৎকোচ দিয়ে পার পেয়ে যায় এবং ওই ঘটনার পরে ব্যবসা ছেড়ে প্রায় ২ মাস ধরে অনত্র পালিয়ে ছিল। বর্তমানে এলাকায় আসার পরে ওই নারীর পাওণা টাকা চাইতে যাওয়ায় তাকে ভয়ভীতি ও হুমকী দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। পরে তার অপকর্মের বিষয়টি পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পরেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যাক্তি জানিয়েছে জাকির মুন্সি একাধিক নারী কেলেঙ্কারী ঘটনায় জড়িত রয়েছে। সে বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্তা নারীদের সরলতার সুযোগ নিয়ে তাদেরকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের ফাঁেদ ফেলে তাদের ইজ্জত ও টাকা পয়সা হাতিয়ে নেয়। নারীদের জিম্মি করে অর্থ হাতিয়ে নেয়া তার নেশা ও পেশা। উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জিয়াউল আহসান জানান বিষয়টি জানা নেই তবে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ওই লম্পট  মুদি-ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে বিচারের দাবী জানিয়ে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন ভুক্তভোগী নারী ও এলাকাবাসী।