আজকের বার্তা
আজকের বার্তা

অনেক কিছুই বলতে পারি না-সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ্


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: এপ্রিল ০৫, ২০২২ ৫:১১ অপরাহ্ণ অনেক কিছুই বলতে পারি না-সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ্

ফিরোজ গাজী ।।

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বলেছেন, মেয়র হচ্ছে জনগণের প্রতিনিধি, আর প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, সিভিল প্রশাসন হচ্ছে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী। দুইটা টোটালি দুই জিনিস। এটা বোঝার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা লাগে বলে আমার মনে হয় না, সিম্পল এন্ড ইজি ব্যাপার। আমি বেতন পাই না, আমি পাই সম্মানী, আর সম্মানী না পাইলেও কিছু আসে যায় না, কারণ আমি জনগণের সেবা করতে এসেছি। দুইটা দুই জিনিস, দুইটাকে কেনো আমরা গোলমাল করে ফেলি সেটা আমার বোধগম্য না।

এই জায়গাটাই সমস্যা আমাদের। এবং সমস্যা হইলো যে, আমি সত্যি কথা বলি, আমি যেটা বুঝি, আমার মন যেটা বলে, যেটা আমার নীতি বিবেক বলে সেটাই বলার চেষ্টা করি আমি। এখন কথা বলিনাতো, অনেক কথা-বার্তা বলা কমাইয়া দিছি। অনেক কিছু আসার পরেও বলতে পারি না। শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত এর বর্ণাঢ্যময় কর্মজীবনী ও তার ইতিহাস সম্পর্কিত বই আকারে সংরক্ষণ বিষয়ক আলোচনা সভা শেষ করে গতকাল সেরালস্থ বাস বভন থেকে বরিশালে ফেরার পথে এক ফেসবুক লাইভে তিনি এই কথা বলেন।

তিনি আর ও বলেন, পরিবর্তন দরকার, পরিবর্তন হচ্ছে ইনশাল্লাহ, আমি আশাবাদি। চেঞ্জ আসতেছে আমাদের নতুনদের মাঝে, ইনশাল্লাহ সোনার বাংলাদেশ আমরা গড়বো। সিটি মেয়র আরও বলেন, ১৫ আগস্টে জাতির জনকের হত্যার সাথে সাথে এদেশটাকে পাকিস্তান বানাতে চেয়েছিলো, পারেনাই ঠিকই, কিন্তু চেষ্টা করছিলো।

তিনি বলেন, অনেকে বলেন মেয়র অনেক উন্নয়ন করতেছেন, অনেক ভালো কাজ করতেছেন, কিন্তু আমি মনে করি এইটাতো নরমাল একটা কাজ, আমিতো মনে করি আমি আমার দায়িত্ব পালন করতেছি মাত্র। তো আমরা কোন যায়গায় চলে গেছি যে, ঐ টাই হচ্ছে আমাদের কাছে রেগুলার জিনিস পার্সেন্টিজ, দুর্নীতি, ঘুষ দেয়া ঘুষ নেয়া, অনৈতিক কর্মকাণ্ড করা, কথার সাথে কাজের মিল না থাকা।

মেয়র তার অভিমত ব্যক্ত করে বলেন, রাজনীতি যারা করেন জনগণের সাথে তাদের যেভাবেই হোক কমবেশি সম্পৃক্ততা থাকে। তিনি উদাহরণ হিসেবে বলেন, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের একটা লোক প্ল্যানের জন্য আসলো বা একটা বাড়ির জন্য আসলো, যে লোকটা তার সারাজীবনের ইনকাম দিয়ে এই বাড়িটা করতে চায়, আরেকজন লোক আসবে যে তার ৪টা বাড়ি আছে এবং আরেকটি ব্যবসার জন্য আসছে।

তো… আমি আমার যায়গা থেকে কি দেখবো, আমি দেখবো যে লোকটি তার সারাজীবনের পুঁজি দিয়ে বাড়িটি করতে আসছে তাঁকে যত ধরণের সুযোগ-সুবিধা আছে আমি তা দেবো। আর ঐ যে লোকটা ব্যবসা করতেছে, ৪টা বাড়ি আছে তাকে আমি সর্বোচ্চটা ধরবো কারণ সে বিজনেস করতেছে। শেষে তিনি বলেন, আমি আপনাদের সাথে আছি, ছিলাম, পূর্ব পুরুষরাও ছিলো, আগের থেকে আরও জোরদারভাবে আছি।