আজকের বার্তা
আজকের বার্তা

বরিশালে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৮, ২০২৪ ৭:০৭ অপরাহ্ণ বরিশালে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
Spread the love

ন্যায্য মজুরি, ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার, ব্যাটারিচালিত যানবাহনের লাইসেন্সের দাবি জানানোর মধ্য দিয়ে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে বরিশালে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে মহাত্মা অশ্বিনী কুমার হলের সামনে সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট বরিশাল জেলার উদ্যোগে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সমাবেশ ও লাল পতাকা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

শুরুতেই একটি মিছিল নগরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিল-পরবর্তী সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট বরিশাল জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দুলাল মল্লিক।

বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদ বরিশাল জেলা শাখার সমন্বয়ক ডা. মনিষা চক্রবর্তী, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক ইমাম হোসেন খোকন, শ্রমিক ফ্রন্টের দপ্তরবিষয়ক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট দীর্ঘ ৪২ বছর ধরে শ্রমিকদের সব আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছে। বর্তমানে সময়ে গার্মেন্টস-টেক্সটাইলের মতো প্রাতিষ্ঠানিক খাত থেকে শুরু করে ব্যাটারিচালিত রিকশা-ইজিবাইকসহ পরিবহন খাতেও শ্রমিক আন্দোলনের লড়াকু সংগঠন হিসেবে সারা দেশে শ্রমিক ফ্রন্ট শ্রমিকদের আস্থা অর্জন করছে।

বক্তারা বলেন, নীতিমালা চূড়ান্ত করে ব্যাটারিচালিত যানবাহনের লাইসেন্স দেওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বরং বিভিন্ন জায়গায় এখনো শ্রমিকদের জিম্মি করে চাঁদা নেওয়া হচ্ছে অথবা অযৌক্তিকভাবে ট্রাফিক মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। অবিলম্বে ইজিবাইকের লাইসেন্স দেওয়ার মাধ্যমে এই খাতভুক্ত লক্ষাধিক শ্রমিকদের ট্রাফিক হয়রানি ও চাঁদাবাজি থেকে মুক্তি দিতে হবে।

তারা বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ হওয়ার পর থেকে অপ্রশস্ত মহাসড়কে গাড়ির চাপ বেড়ে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়ে যাচ্ছে। বক্তারা মহাসড়কে সাইড লেন নির্মাণ এবং গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পার্কিং স্ট্যান্ড নির্মাণ করতে হবে এবং শ্রমিক স্বার্থবিরোধী অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবা বিল প্রত্যাহার করার দাবি জানান। বক্তারা সোনারগাঁও টেক্সটাইলে গতবছরের বকেয়া বেতন পরিশোধ করাসহ যুগোপযোগী বেতনস্কেল চালু করার দাবি জানান।

বক্তারা আরও বলেন, গত ৭ জানুয়ারি নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক ঠোকা হয়ে গেছে। যারা জনগণের ভোট ছাড়া ক্ষমতায় আসে, তারা শ্রমিকদের কথা কখনোই চিন্তা করে না। এ সরকার শুধুমাত্র ব্যবসায়ীদের কাছে দেশ বর্গা দেওয়ার জন্য জনসমর্থনবিহীন একটা পাতানো নির্বাচন করে সংসদ গঠন করেছে। বক্তারা অবিলম্বে এ সরকারের পদত্যাগ দাবি করেন।