আজকের বার্তা
আজকের বার্তা

দাদনের টাকার জন্য শিকলে বেঁধে নির্যাতন করে শ্রমিককে হত্যার অভিযোগ


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: জানুয়ারি ০১, ২০২৪ ৬:৫৬ অপরাহ্ণ দাদনের টাকার জন্য শিকলে বেঁধে নির্যাতন করে শ্রমিককে হত্যার অভিযোগ
Spread the love

বার্তা ডেস্ক ॥  ইটভাটার সরদার ছালাম চৌকিদার ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে শ্রমিক আনিস গাজীকে (৫৫) লোহার শিকলে বেঁধে নির্যাতনে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের স্ত্রী ফিরোজা বেগম এমন অভিযোগ করেন।

ঘটনা ঘটেছে আমতলী উপজেলার গুলিশাখালী ইউনিয়নের কালিবাড়ী এলাকার আইএসএসবি ইটভাটায়। রোববার বেলা ১১টার দিকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (আমতলী সার্কেল) রুহুল আমিন ও ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

জানা গেছে, উপজেলা ডালাচারা গ্রামের চাঁন গাজীর ছেলে আনিস গাজী গত আগস্ট মাসে কালিবাড়ী এলাকায় আইএসএসবি ইটভাটায় কাজ করতে ইটভাটার সরদার ছালাম চৌকিদারের কাছ থেকে ৪০ হাজার টাকা দাদন নেন। গত এক মাস আগে ভাটায় কাজ যোগ দেন তিনি। ১৫ দিন কাজ করে আনিস পালিয়ে যান।

স্ত্রী ফিরোজার অভিযোগ, ভাটার কাজ করার সময় সরদার ছালাম ও তার লোকজন তার স্বামীকে মারধর করেছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৩টায় ভাটার সরদার ছালাম গাজী, খালেক ও সবুজ শ্রমিক আনিস গাজীকে তার বাড়ি ডালাচারা থেকে তুলে আনে। পরে তাকে ইটভাটার একটি কক্ষে শিকল গিয়ে আটকে রেখে নির্যাতন করেছে বলে অভিযোগ করেন স্ত্রী ফিরোজা বেগম ও শিশুপুত্র শাহা গাজী (৮)।

পুলিশ শ্রমিক খালেক মিয়ার কক্ষ থেকে লোহার শিকল উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য নাসিমা বেগমের ছোট ছেলে রাকিবকে পুলিশ হেফাজতে আনা হয়েছে। এ ঘটনার পরপর ওই ইটভাটার সব শ্রমিক পালিয়েছে। পুলিশ ওই দিন বিকালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা মর্গে প্রেরণ করেছে।

গুলিশাখালী সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য নাসিমা বেগম বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে আমার ছেলের সবুজের মোটরসাইকেলে উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান ও ফারুক গাজীর ইটভাটার সরদার ছালাম চৌকিদার ও খালেক শ্রমিক আনিস গাজীকে বাড়ি থেকে তুলে আনে। পরে ভাটার একটি কক্ষে লোহার শিকল দিয়ে বেঁধে রাখে। গত তিন দিন ধরেই আনিস ওই কক্ষে বাঁধা ছিল। রোববার বেলা ১১ টার দিকে জানতে পারি তিনি মারা গেছেন।

তিনি আরও বলেন, মারা যাওয়ার পরে ইটভাটার সরদার ছালাম চৌকিদার ও তার লোকজন পা থেকে শিকল খুলে পাশের একটি কক্ষে লুকিয়ে রাখে।

ইটভাটার মালিক উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান বলেন, ওই ইটভাটা আমি চালাই না। গত বছর ফারুক গাজীর কাছে বিক্রি করে দিয়েছি। তবে শুনেছি একজন শ্রমিক নির্যাতনে মারা গেছেন।

তবে ওই ইটভাটার পোড়াই মিস্ত্রি সুলতান মিয়া বলেন, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মজিবুর রহমানের ইটভাটা ফারুক গাজী দেখভাল করেন।

ফারুক গাজীর মোবাইল ফোনে বলেন, ওই শ্রমিক অসুস্থ ছিল। তার স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে।

আমতলী থানার ওসি কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, একটি কক্ষ থেকে লোহার শিকল উদ্ধার করা হয়। এ বিষয়ে তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে রাকিব নামক একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়েছে।

সহকারী পুলিশ সুপার (আমতলী সার্কেল) রুহুল আমিন বলেন, আনিস নামের একজন শ্রমিককে ইটভাটার লোকজন লোহার শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনে মারা গেছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। তদন্তসাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।