Agaminews
Agaminews Banner

৭১ এর এই দিনে আবার বিমান হামলা 


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০২১ ৬:২০ অপরাহ্ণ ৭১ এর এই দিনে আবার বিমান হামলা 
তপন চক্রবর্তী
বরিশালে প্রথম বিমান আক্রমনের পর চারদিন কেটে গেছে এরমধ্যে আকাশের অনেক উচুতে পাকিস্তানের পরিদর্শন বিমান গুরে গেছে তবে ফাইটার জেট আসেনি। আসবে যে এটা নিশ্চিত তবে কবে আসবে সেটা তো আর নিশ্চিত নয়। সেদিন ১৯৭১ সনের বাইশে এপ্রিল বেলা ১০ টার কিছু বেশী বৈশাখ মাসের পরিস্কার আকাশ শহরের লোকজন লোকজন। আগের চেয়ে অনেক কম। এর মধ্যে মুক্তিবহিনীর তরুনরা বিভিন্ন জায়গায় প্রশিক্ষন নিচ্ছে আর বেশীর ভাগ লোকই রেডিওতে বিদেশের খবর শুনছে বিশেষ করে ভারতের আকাশ বানীর খবর যদি কোন আশার খবর পাওয়া যায়।
হঠাত আকাশে জেট ফাইটারের আওয়া সাথে সাথেই লোকজন ছোটাছুটি করে নিরাপদ আশ্রয় খুজতে লাগল কেউ বা সদ্য খোড়া ট্রেঞ্চে আর কেউ বা কোন দালানের নিচের তলায় আশ্রয় নিল। প্লেন দুটি এবার আর শহরের উপর আক্রমন চলালনা এক চক্কর ঘুরে সোজা পশ্চিম দিকে চলে গেল আর বরিশাল শহরের লোকজন ভাবল এবার তাহলে প্লেন দুইটির লক্ষ্য কি।
বরিশাল শহরের পশ্চিমে ১০ মাইল দুরে দোয়ারিকা আর শিকারপুরের মধ্য দিয়ে বয়ে চলেছে সন্ধ্যানদী। এক অপুর্ব সুন্দর নদী সারা বছর এখানে জল থাকে যেন মায়ের স্নেহে সমস্ত এলাকাকে আগলে রেখেছে লক্ষ লক্ষ মানুষকে রুটি রুজির যোগান দিয়ে যাচ্ছে। এই নদী দিয়ে সেদিন তিনটি একতলা যাত্রীবাহী লঞ্চ দোয়ারিকা আর আর শিকারপুুরের মধ্য দিয়ে উজিরপুরের দিকে যাচ্ছিল। চারদিন আগে ১৮ ই এপ্রিল তারিখে বরিশাল শহরের পাশে কীর্তনখোলা নদীতে পাকিন্তানি প্লেন দুটি যাত্রীবাহি লঞ্চের উপর হামলা করে সব যাত্রীসহ ডুবিয়ে দিয়েছিল কোন যাত্রী বাচেনি। ২২ শে এপ্রিল সেই দিনে লঞ্চ তিনটির যাত্রী বা চালক কেউই ভাবেনি শহর থেকে ১০ বা ১২ মাইল দুরে কোন লঞ্চের উপর হামলা চালাতে পাকিস্তানি প্লেন আসতে পারে। এছাড়া তখন লঞ্চ ছাড়া যাতায়াতের কিছু ছিল না। পাকিস্তানি ফাইটার দুটি নদীর পথ ধরে আসছিল লঞ্চ তিনটিকে দেখা মাত্রই হামলা চালাল রকেট হামলা আর ভারী মেশিনগানের গুলিতে লঞ্চ তিনটি প্রায় সাথে সাথেই ডুবে গেল। মাঝ নদীতে ডুবন্ত লঞ্চের সবাই ডুবে গেল। সাহায্য করার জন্য আর যাওয়াও সম্ভব ছিল না। প্লেন দুটি আকাশে কয়েকবার চক্কর দিল এবং নিশ্চিত হোল সব যাত্রী নিয়ে লঞ্চ তিনটি শেষ হয়ে গেল তখন তারা বীরদর্পে ফিরে গেল। সেদিন কত জন লোক মারা গেল তার হিসেব কেউ রাখেনি। হামলাকারী পাইলট এদেরই এতদিন পাকিস্তান সরকার মহাবীর বলে জানিয়ে এসেছে এদের আসল চেহারাটা এবার দেখা গেল।