Agaminews
Agaminews Banner

আট বছর পর শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্তি


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২০, ২০২১ ৩:০৯ অপরাহ্ণ আট বছর পর শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্তি

নিউজ ডেস্ক:

আট বছর পর শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্তি পেলেন বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার রাংতা গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন তোতা।

সংবাদমাধ্যমে এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে তাকে শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্ত করে চিকিৎসার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আগৈলঝাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আবুল হাশেম জানান, বিভিন্ন মাধ্যমে তিনি শিকলবন্দি জাহাঙ্গীর হোসেন তোতার অবস্থার কথা জানতে পারেন। তাৎক্ষণিকভাবে জাহাঙ্গীর হোসেন তোতাকে উদ্ধারের উদ্যোগ নেওয়া হয়। উপজেলা সমাজসেবা অফিসের সহযোগিতায় রোববার (১৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় তোতাকে শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্ত করা হয়। তোতার চিকিৎসায় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে আশা করা হচ্ছে তাকে দ্রুত সুস্থ করে তোলা যাবে।

তোতার বয়স ৫৫ বছর। তিনি উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের রাংতা গ্রামের মৃত আলতাব হোসেনের বড় ছেলে। ৮ বছর ধরে শিকলবন্দি হয়ে কাটছিল জাহাঙ্গীর হোসেন তোতার জীবন। অসুস্থ হওয়ায় তোতাকে শিকলবন্দি করে রাখা হয়েছিল।

জাহাঙ্গীর হোসেন তোতা বলেন, দীর্ঘদিন পর শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্ত হয়ে নিজের কাছে খুব ভালো লাগছে। কিছুটা শারীরিক ও মানসিক দুর্বলতা আছে। সঠিক চিকিৎসা পেলে আমি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠতে পারবো।

রাংতা ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন বলেন, বড় ভাইকে সু-চিকিৎসা না করিয়ে শিকলবন্দি করে রেখেছিলেন তোতার ছোট ভাই। এখন তিনি শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্তি পাওয়ায় আমরা এলাকাবাসী প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।

তোতার মা হাওয়া বেগম ও বোন রাশিদা বেগম বলেন, দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে মানসিকভাবে অসুস্থ তোতা। গত ৮ বছর ধরে তোতাকে শিকল দিয়ে বন্দি করে রাখা হয়েছিল। তোতা খুব দ্রুত সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবে এটাই আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করি।

জাহাঙ্গীর হোসেন তোতার ছোট ভাই রাংতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মানিক মিয়া বলেন, আমার বড় ভাই মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। কিন্তু আমাদের উচিত হয়নি তাকে আটটি বছর ধরে বন্দি করে রাখা। এখন শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্ত করা হয়েছে তাকে। আমরা দুই-একদিনের মধ্যে তাকে পাবনা মানসিক হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করবো।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সুশান্ত বালা বলেন, স্থানীয় সংবাদকর্মীদের মাধ্যমে জানতে পেরে এবং উপজেলা ইউএনও মো. আবুল হাশেম স্যারের নির্দেশে জাহাঙ্গীর হোসেন তোতার বাড়িতে গিয়ে ৮ বছর ধরে শিকলবন্দিত্ব থেকে মুক্ত করা হয় তাকে। পরে তোতাকে দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।