Agaminews
Agaminews Banner

প্রথম পরীক্ষা খারাপ হওয়ায় আত্মহত্যা


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: নভেম্বর ২১, ২০২১ ৩:০০ অপরাহ্ণ প্রথম পরীক্ষা খারাপ হওয়ায় আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বরিশালের বাবুগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে মুন্নি আক্তার (১৫) নামে এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে।

রোববার (২১নভেম্বর) দুপুরে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

মুন্নি আক্তার বাবুগঞ্জ উপজেলার দেহেরগতি ইউনিয়নের খলিল হাওলাদারের মেয়ে। নানাবাড়িতে থেকে উপজেলার ঈশ্বর নারায়ণ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল।

স্বজনরা জানান, মুন্নির তিন বছর বয়সে বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ ঘটে। এরপর তার মা সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অর্থ উপার্জনে জন্য লেবানন যান। এরপর থেকে মুন্নি বাবুগঞ্জ উপজেলার দেহেরগতি ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডে নানা ইঙ্গুল আলী খানের বাড়িতে বড় হয়। সেখানে থেকেই সে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। রোববার সকালে নানার বাড়ি থেকে প্রায় ১০০ গজ দূরের একটি আম গাছের ডালে গলার সঙ্গে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় মুন্নির মরদেহ পাওয়া যায়।

মুন্নির মামা মামুন খান বলেন, মুন্নি এসএসসি পরীক্ষার প্রথমদিন মাধবপাশা চন্দ্রদীপ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে পৌঁছাতে ৩০ মিনিট দেরি করে। এ কারণে মুন্নি সব প্রশ্নের উত্তর লিখতে পারেনি। এরপর থেকেই সে হতাশায় ভুগছিল। সারাক্ষণ মন খারাপ করে থাকতো। শনিবার রাতে খাবার খেয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে মুন্নি নিজের রুমে ঘুমাতে যায়। সকালে অন্যরা ঘুম থেকে উঠে মুন্নিকে বিছানায় দেখতে না পেয়ে বাইরে খোঁজ করে। কিছুক্ষণ পর আম গাছের ডালের সঙ্গে মুন্নিকে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ঝুলতে দেখা যায়।

মামুন খান আরও বলেন, মুন্নিকে গাছের ডাল থেকে উদ্ধার করে নিচে নামানোর পর মৃত পাওয়া যায়। পরে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ এসে ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহ নিয়ে যায়। আমাদের ধারণা, প্রথম পরীক্ষা খারাপ হওয়ায় হতাশা থেকেই মুন্নি আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছে।

বাবুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুবুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, মুন্নির মরদেহ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরিবার ও আশপাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে ধারণা করা হচ্ছে প্রথম পরীক্ষা খারাপ হওয়ায় সে আত্মহত্যা করেছে। তবে কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে নিশ্চিত হওয়া যাবে।