Agaminews
Agaminews Banner

জামিন পেলেন হাসপাতাল পালানো করোনা রোগীরা


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: মে ১০, ২০২১ ২:০৩ অপরাহ্ণ জামিন পেলেন হাসপাতাল পালানো করোনা রোগীরা

বার্তা ডেস্ক ॥
যশোর আড়াইশ’ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল থেকে ‘পালানো’ সেই দশ করোনা রোগীর মধ্যে সাতজন সোমবার বাড়ি ফিরেছেন। দ্বিতীয়বারের পরীক্ষায় তারা করোনা নেগেটিভ হওয়ায় সোমবার সকালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের ছাড়পত্র দেয়। এরপর পুলিশ তাদের সেখান থেকে যশোর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে শুনানি শেষে বিচারক মাহাদী হাসান তাদের জামিন মঞ্জুর করেন। যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম জানান, হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের রেড জোনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দশ করোনা রোগী পালানোর ঘটনায় সংক্রমণ রোগ প্রতিরোধ ও নির্মূল আইন ২০১৮ এর ২৫ এর ২ ধারায় ওই দশ করোনা রোগীর বিরুদ্ধে শনিবার আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশের দায়ের করা ওই মামলায় দশ করোনা রোগীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। গত ২৩ থেকে ২৬ এপ্রিলের মধ্যে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দশ করোনা রোগী পালিয়ে যান। তাদের মধ্যে সাতজনই ভারত থেকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে প্রবেশ করেন। এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হলে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় স্বাস্থ্য বিভাগ ওই দশজনকে বাড়ি থেকে ধরে এনে ফের হাসপাতালে ভর্তি করে। যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী ফরিদুল ইসলাম বলেন, সংক্রমণ রোগ প্রতিরোধ কার্যক্রমে বাধা প্রদানের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়। এ মামলায় তিনমাসের কারাদ- বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দ-ের বিধান রয়েছে। সোমবার গ্রেফতারের পর জামিন পাওয়া সাতজন হলেন ভারত ফেরত যশোর শহরের পশ্চিম বারান্দিপাড়া এলাকার বিশ্বনাথ দত্তের স্ত্রী মণিমালা দত্ত, সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপপাড়া গ্রামের মিলন হোসেন, রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তপুর গ্রামের নাসিমা আক্তার, খুলনা সদর উপজেলার বিবেকানন্দ, খুলনার পাইকগাছা উপজেলার ডামরাইল গ্রামের আমিরুল সানা, খুলনার রূপসা উপজেলার সোহেল সরদার এবং যশোর সদর উপজেলার পাঁচবাড়িয়া গ্রামের রবিউল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা। এছাড়াও সাতক্ষীরা কালীগঞ্জ উপজেলার শেফালি রানী সরদার, যশোর সদর উপজেলার পাঁচবাড়িয়া গ্রামের একরামুল কবীরের স্ত্রী রুমা ও যশোর শহরের ওয়াপদা গ্যারেজ এলাকার ভদ্র বিশ্বাসের ছেলে প্রদীপ বিশ্বাস এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হলে তাদেরও গ্রেফতার করা হবে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।