Agaminews
Agaminews Banner

শ্যাম্পুর দাম কম না রাখায় দোকানীর বিরুদ্ধে মামলা দিলেন সার্জেন্ট!


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: মে ০৯, ২০২১ ৫:২৮ অপরাহ্ণ শ্যাম্পুর দাম কম না রাখায় দোকানীর বিরুদ্ধে মামলা দিলেন সার্জেন্ট!

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥
বরিশালে শ্যাম্পুর মূল্য কম না রাখায় এক ফার্মেসি মালিককে উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে মামলা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক সার্জেন্টের বিরুদ্ধে। গত শনিবার রাতে নগরীর বান্দ রোডের হাওলাদার ফার্মেসির সামনে অবৈধভাবে পার্কিং করা মোটরসাইকেল চালক ও ফার্মেসি মালিক খলিলুর রহমানের বিরুদ্ধে এ মামলা দেওয়া হয়। ঘটনার সময় ওই স্থানে একাধিক মোটর সাইকেল অবৈধ পার্কিংয়ে থাকলেও সেই গাড়িগুলোর বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ ভূক্তভোগীর। খলিলুর রহমান বলেন, গত শনিবার সকালে শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালের সামনে তার মালিকানাধীন হাওলাদার ফার্মেসিতে নিজোডার শ্যাম্পু কিনতে আসেন সার্জেন্ট শহীদুল ইসলাম। এ সময় শ্যাম্পুর দাম ২৩০ টাকা চাওয়া হয়। সার্জেন্ট শহীদুল দাম কমিয়ে রাখার জন্য বললে তিনি ১০ টাকা দাম কমিয়ে দেন। কিন্তু সার্জেন্ট শহীদুল দোকানদারের কেনা দামে শ্যাম্পু নিতে চান। এ নিয়ে দরকষাকষির এক পর্যায়ে ২২০ টাকায় শ্যাম্পু নিয়ে যাওয়ার সময় তাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন দোকানদার খলিলুর। ঘটনার জেরে রাতে ফার্মেসির সামনে পার্কিং করা খলিলুর রহমানের মোটরসাইকেলের কাগজপত্র দেখতে চায় সার্জেন্ট শহীদুল ইসলাম। এ সময় মোটরসাইকেল অবৈধ পার্কিংয়ের দায়ে তার বিরুদ্ধে তিন হাজার টাকা সমমানের মামলা দেওয়া হয়। আশপাশে আরো অর্ধশত মোটর সাইকেল অবৈধ পার্কিংয়ে থাকলেও ওই যান চালকদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর। একই সময় ওই ফার্মেসির সামনে মোটরসাইকেল রেখে এক ক্রেতা দোকান থেকে ওষুধ কিনছিলেন, তাকেও অবৈধ পার্কিংয়ের অভিযোগে তিন হাজার টাকার মামলা দেওয়া হয়। ট্রাফিক সার্জেন্ট শহীদুল ইসলাম দরকষাকষি করে শ্যাম্পু কেনার কথা স্বীকার করে বলেন, গত শনিবার দুপুর ২টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত নগরীর আমতলা মোড়, মেডিকেলের সামনে দায়িত্ব পালন করেছি। ওই সময় রাস্তায় যানবাহনের চাপ ছিল। সড়ক নির্বিঘœ রাখতে রাত ৮টার দিকে অবৈধ পার্কিংয়ে থাকা দুই মোটর সাইকেল চালকের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে। কাউকে উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে মামলা দেওয়া হয়নি। বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) জাকির হোসেন মজুমদার বলেন, ভুক্তভোগী ব্যক্তি আমাদের কাছে কোন অভিযোগ দেননি। বিষয়টি শুনেছি, তদন্তও চলছে। সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ব্যক্তিগত আক্রোশ মেটাতে কেউ পুলিশ বাহিনীর ক্ষমতার অপব্যবহার করলে প্রশ্রয় দেওয়া হবেনা।