Agaminews
Agaminews Banner

‘কোভ্যাক্সিন’ টিকার দাম নির্ধারণ


আজকের বার্তা | প্রকাশিত: এপ্রিল ২৫, ২০২১ ১:৩৩ অপরাহ্ণ ‘কোভ্যাক্সিন’ টিকার দাম নির্ধারণ
বার্তা ডেস্ক ॥
ভারত বায়োটেকের তৈরি করোনার টিকা ‘কোভ্যাক্সিন’ কিনতে দেশটির রাজ্য সরকারগুলোর খরচ পড়বে ডোজপ্রতি ৬০০ রুপি। কিন্তু বেসরকারি হাসপাতালগুলোর ক্ষেত্রে এক একটি ডোজের দাম ধরা হয়েছে ১২০০ রুপি করে।  শনিবার হায়দরাবাদভিত্তিক ভারত বায়োটেকের পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।  খবর ইন্ডিয়া টুডের। যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার যৌথ উদ্যোগে তৈরি টিকা ‘কোভিশিল্ড’-এর এক একটি ডোজের দাম আগেই জানিয়েছিল ভারতে ওই টিকা প্রস্তুতকারী সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (এসআইআই)। রাজ্য সরকারের জন্য তাদের তৈরি করোনার টিকার একটি ডোজের দাম ধার্য করা হয়েছিল ৪০০ রুপি। অন্যদিকে বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে তা কিনতে হবে ৬০০ রুপিতে। এই দাম নিয়ে সমালোচনার মুখেও পড়েছে সংস্থাটি। তবে শনিবার রাতে ভারত বায়োটেকের টিকার দাম ঘোষিত হতেই দেখা গেল, তা সেরামকেও ছাপিয়ে গেছে। ‘কোভ্যাক্সিন’-এর দাম এত বেশি কেন হলো? এ নিয়ে নিজেদের যুক্তিও দিয়েছে ভারত বায়োটেক। সংস্থার চেয়ারম্যান তথা ম্যানেজিং ডিরেক্টর কৃষ্ণ এম ইল্লার দাবি, কোভিডের টিকা তৈরিতে যে খরচ হয়েছে, তার খরচ তুলতেই এত দাম রাখা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, এই টিকা উৎপাদনসহ তার পরীক্ষা-নিরীক্ষার খরচও মূলত সংস্থার নিজস্ব তহবিল থেকে করতে হয়েছে। প্রসঙ্গত, ভারতে চলতি টিকাদান কর্মসূচিতে ‘কোভ্যাক্সিন’ এবং ‘কোভিশিল্ড’-এর ডোজই দেওয়া হচ্ছে। তবে ভারতে সেরামের টিকার ডোজের দাম নিয়ে ইতোমধ্যে সংস্থাটিকে কাঠগড়ায় তুলেছেন অনেকে। কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে ১৫০ রুপিতে এক একটি ডোজ বিক্রি করলেও রাজ্য সরকারগুলোকে তা কেন ৪০০ রুপিতে কিনতে হবে অথবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের জন্য সে দাম কেন ৬০০ রুপি সে প্রশ্ন উঠেছে। যদিও সেরামের শীর্ষকর্তা আদার পুনাওয়ালার মন্তব্য এ মুহূর্তে যে দুটি টিকা ভারতে ব্যবহার করা হচ্ছে, তার মধ্যে কোভিশিল্ডই সবচেয়ে সস্তা।